Deshdeshantor24com: Bangla news portal

ঢাকা রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪

সাপ নিধনে হাদিসে যা বলা হয়েছে

সাপ নিধনে হাদিসে যা বলা হয়েছে
প্রতীকী ছবি

পৃথিবীতে যা কিছু আছে তার সবকিছুই মহান আল্লাহর সৃষ্টি। পবিত্র কোরআনে মহান আল্লাহ বলেন, ‘আমাদের প্রভু তিনি, যিনি প্রতিটি জিনিসকে এর আকার (গঠন ও অবয়ব) দান করেছেন। তারপরে একে সঠিক পথ প্রদর্শন করেছেন।’ (সুরা ত্বহা, আয়াত: ৫০)

মহান আল্লাহর অপার সৃষ্টি রহস্যের অন্যতম হলো সাপ ও বিচ্ছু। এদের দেখলেই মানুষ তা মেরে ফেলার চেষ্টা করে। কিন্তু, বিনা কারণে জীব-জন্তু হত্যা করা শরী‘য়তে নিষিদ্ধ। তবে যে সকল প্রাণী মানুষের ক্ষতি করে সেগুলো মারার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সাপ ক্ষতিকর প্রাণী। তাই রাসূল (সা.) বলেন, যে ব্যক্তি সাপের ভয়ে সাপ হত্যা করল না, সে আমার শরী‘য়তের অন্তর্ভুক্ত নয়’ (আবুদাঊদ হা/৫২৪৯; মিশকাত হা/৪১৪০)।

নবীজি সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, কোনো সাপ মারার আগে ৩ বার তাকে সাবধান করবে। এরপরও যদি সে (গর্ত থেকে) বের হয়, তখন মেরে ফেলবে। কেননা সে শয়তান। (আবু দাউদ: ৫১৬৮)।

আরেক হাদিসে হজরত আবু সাঈদ খুদরি (রা.) থেকে বর্ণিত আছে, তিনি বলেন, নবীজি সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, মদিনায় জিনদের একটি দল রয়েছে, যারা ইসলাম কবুল করেছে। তাই যে ব্যক্তি এসব বাড়িঘরে বসবাসকারীদের (সাপ ইত্যাদির রূপধারী) কোনো কিছু দেখতে পায়, সে যেন তাকে ৩ বার সতর্ক সংকেত দেয়; এরপরও যদি তার সামনে তা প্রকাশ পায়, তবে সে যেন তাকে মেরে ফেলে, কেননা সে একটা (অবাধ্য) শয়তান। (মুসলিম: ৫৬৪৬)

হজরত সালিম (রহ.) তার পিতা থেকে বর্ণনা করেছেন, নবীজি সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘তোমরা সেই সাপ মারবে, যার পিঠে দুটি সাদা রেখা আছে এবং যার লেজ নেই। কেননা এরা বিষধর হওয়ার কারণে দৃষ্টিশক্তি নষ্ট করে দেয় এবং গর্ভস্থিত সন্তান ধ্বংস করে দেয়।’

বর্ণনাকারী বলেন, এরপর থেকে আবদুল্লাহ (রা.) যেকোনো সাপ দেখতে পেলে তা মেরে ফেলতেন। একবার আবু লুবাবা (রা.) অথবা জায়েদ ইবনে খাওয়াব (রা.) তাকে একটি সাপ মারতে উদ্যত দেখে বললেন, নবীজি সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ঘরে বসবাসকারী সাপ মারতে নিষেধ করেছেন। (আবু দাউদ: ৫১৬২)

নবীজি সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সাপের ব্যাপারে উম্মতকে সতর্ক করেছেন। কখনও এদের দ্বারা আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিলে মেরে ফেলার অনুমতি দিয়েছেন। এমনকি নামাজের ভেতরও যদি অনিষ্টকারী সাপের উপস্থিতি টের পাওয়া যায়, তবে সাপের অনিষ্ট থেকে বাঁচতে আগে সাপ সামলানোর পরামর্শ দিয়েছেন। হাদিস শরিফে ইরশাদ হয়েছে, নবীজি সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, তোমরা নামাজরত অবস্থায়ও কালো সাপ ও কালো বিচ্ছু হত্যা করো। (আবু দাউদ: ৯২১)

তবে কোনো ধরনের ক্ষতির আশঙ্কা না দেখা দিলে নির্বিচারে সাপ হত্যা ইসলামের দৃষ্টিতে অনুমোদিত নয়। আবদুল্লাহ ইবনে ওমর (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, একবার আমি একটি সাপ মারার জন্য তার পিছু ধাওয়া করছিলাম। এমন সময় আবু লুবাবা (রা.) আমাকে ডেকে বলেন, সাপটি মেরো না। তখন আমি বললাম, আল্লাহর রসুল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সাপ মারার জন্য আদেশ দিয়েছেন। তিনি বলেন, এরপরে নবীজি সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যে সাপ ঘরে বাস করে, যাকে ‘আওয়ামির’ বলা হয়, এমন সাপ মারতে নিষেধ করেছেন। (বুখারি: ৩২৯৮)

হাদিস শরিফে এসেছে, একবার বিচ্ছু দ্বারা দংশিত এক ব্যক্তিকে নবীজি সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের কাছে আনা হলে তিনি বলেন,

উচ্চারণ: আউজু বিকালিমাতিল্লাহিত তাম্মাতি মিন শাররি মা খালাক।

অর্থ: আমি আল্লাহর পরিপূর্ণ কালেমার মাধ্যমে প্রত্যেক শয়তান, বিষাক্ত প্রাণী এবং প্রত্যেক কুদৃষ্টির অনিষ্ট থেকে আশ্রয় চাইছি। তাহলে তাকে দংশন করতে পারত না অথবা তার ক্ষতি করতে পারত না। (আবু দাউদ: ৩৮৯৯)

 
কেএ

নামাজের সময়সূচী

রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪
Masjid
ফজর ৪:৪১
জোহর ১২:০৭
আসর ৪:২৯
মাগরিব ৬:১৪
ইশা ৭:২৮
সূর্যোদয় ৫:৫৬
সূর্যাস্ত ৬:১৪